জনগণের রাণী প্রিন্সেস অব ওয়েলস ডায়ানা

রেডিও টুডে নিউজ ডেস্ক : অসাধারণ রুপের সাথে চোখধাঁধানো ফ্যাশন। মানবতার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করা, প্রণয়সহ নানা কারণে তুমুল আলোচিত হয়ে সবশেষে রহস্যময় মৃত্যু।

তিনি ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের পুত্র প্রিন্স চার্লসের স্ত্রী, প্রিন্সেস অব ওয়েলস খ্যাত ডায়ানা। ছিলেন, বৃটিশ রাজপরিবারের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজবধূও।

রুপকথা রজকুমারির মতো এমন ঘটনাবহুল প্রিন্সেস ডায়ানার জীবন। মাত্র ১৯  বছর বয়সে ব্রিটিশ রাজপুত্র প্রিন্স চার্লসের নজরে আসার পর প্রণয়; এর একবছর পর ১৯৮১ সালের ২৯ শে জুলাই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন ২০ বছর বয়সী ডায়ানা।

Diana-20th-Special-t

বিয়ের পর বিশ্বের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছিল তার সুনাম। তিনি যেখানেই যেতেন সেখানেই দল বেধে যেত পাপারাজ্জিরা। গোপনে যে ছবি তুলতেন, তা স্থান পেতো কোনো কোনো ম্যাগাজিন কিংবা পত্রিকার পাতায়। 

তবে ১৯৯২ সালের দিকে দৃশ্যপট পাল্টাটে থাকে। সামনে আসে তার স্বামী চার্লসের পরকীয়ার গুঞ্জন। পরে ডায়ানারও একাধিক প্রেমের বিষয় সামনে আসে।

পাশাপাশি রাজপরিবারের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমে বিস্ফোরক সব সাক্ষাৎকার দিয়ে নিজেকে আলোচনার তুঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন ডায়ানা।

এরপর ১৯৯৬ সালে রানীর নির্দেশে চার্লসের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটলেও, রাজপরিবার কেড়ে নিতে পারেনি তার প্রিন্সেস অব ওয়েলস খেতাব। তবে এর এক বছর পর ১৯৯৭ সালের ৩১শে আগষ্ট পাপারাজ্জিদের খপ্পড়ে পড়ে ফ্রান্সের প্যারিসে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় বন্ধু দোদি আল ফায়েদসহ নিহত হন ডায়ানা।

মৃত্যুর পর ২০ বছর কেটে গেলেও এখনো এতটুকু কমেনি প্রিন্সেস থেকে জনগনের রানী হয়ে উঠা ডায়ানার। আজ ২০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাকে স্মরণ করছি গভীর শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Radio Today 89.6fm