যশোরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের অপেক্ষায় সোয়াটের সদস্যরা

Presentation1যশোর শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে গতরাত থেকে চারতলা একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। বাড়িটির অন্য বাসিন্দাদের নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। বাড়িটির নীচে পুলিশের বিশেষায়িত টিম সোয়াটের সদস্যরা অভিযানের জন্য অপেক্ষা করছেন। পুলিশ বলছে, বাড়িটির ভেতরে গুলশান হামলার অন্যতম মাস্টারমাইন্ড নিহত জঙ্গি নুরুল ইসলাম মারজানের বোন খাদিজা ও ভগ্নিপতি মশিউর রহমান সাগর রয়েছেন। তাদের মাইকিং করে আত্মসমর্পনের আহবান জানানো হলেও এখনো কোন সাড়া মেলেনি।
বাড়ির মালিক যশোর জিলা স্কুলের শিক্ষক হায়দার আলী জানান, বাড়িটির ভাড়াটিয়া মশিউর রহমান একটি হারবাল কোম্পানীতে চাকরি করে। তার বাড়ি কুষ্টিয়ায়। তার স্ত্রীর নামে খোদেজা। পুলিশ বলছে, এই খোদেজা ঢাকার আর্টিজান হামলার অন্যতম নায়ক জঙ্গি মারজানের বোন। সে নিজও জঙ্গি সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত । ধারনা করা হচ্ছে সে আত্মঘাতি গ্রুপের সদস্য হতে পারে। এদিকে বেলা ১১টা ২০ মিনিটের দিকে যশোর কোতয়ালী থানার ওসি আজমল হুদা মাইকিং করে জঙ্গি পরিবারের সদস্যদের আত্মসমর্পনের আহবান জানান। বার বার মাইকিং করার পরও ওই আস্তানা থেকে কোন সাড়া মেলেনি। ফলে পুলিশ ওই বাড়ি ঘিরে তাদের তৎপরতা আরো বৃদ্ধি করছে।
এদিকে, বেলা সাড়ে ১১টায় পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, আমাদের কাছে খবর আছে ওই বাড়িতে জঙ্গিরা অবস্থান করছে। ইতিমধ্যে ৪ তলা বাড়ির অন্য ৫টি ফ্লাটের বাসিন্দাদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বাড়িটিতে বর্তমানে একটি পরিবার আছে। যারা জঙ্গি কর্মকান্ডের সাথে সম্পৃক্ত। ফলে আমরা চেষ্টা করছি ওই জঙ্গি পরিবারটিকে নিরাপদে বাইরে নিয়ে আসা। কিন্তু যদি তারা পুলিশের কাজে অসহযোগিতা করে তাহলে পুলিশ বাধ্য হবে পাল্টা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে। তিনি আরো বলেন, আমরা যতটুকু জানতে পেরেছি তাতে ওই পরিবারের ৩টি শিশু আছে। আমরা চেষ্টা করছি শিশু ৩টিকে নিরাপদে সরিয়ে নিতে। তার পরই অপারেশনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।
যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাইমুর রহমান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সোয়াটের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়। তাদের ধারণা এই বাড়িতে জঙ্গি অবস্থান করেছে। পুলিশ ওই এলাকায় সাংবাদিকসহ কাউকে ঢুকতে দিচ্ছেনা ।
এদিকে, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অভিযানে অংশ নিয়েছে র‌্যাব সদস্যরা। এছাড়া কাউন্টার টেররিজম ইউনিট, বোমা নিষ্ক্রিয় ইউনিট ও সোয়াটের সদস্যরা অভিযানে অংশ নিচ্ছে।
এদিকে এই জঙ্গি অভিযানকে ঘিরে গোটা ঘোপ এলঅকায় বিরাজ করছে আতঙ্ক। সাধারণ মানুষের চলাফেরা হচ্ছে বিঘ্নিত। বেলা বাড়ার সাথে সাথে দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে শত শত মানুষ রাস্তায় রাস্তায় অবস্থান নিয়ে জঙ্গি বিরোধী অভিযান প্রত্যক্ষ করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Radio Today 89.6fm