রাঙামাটিতে এবার আ. লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে আহত

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দ চাকমাকে হত্যার পর এবার জেলা মহিলা লীগের সহ-সভাপতি ঝর্ণা খীসাকে বাসায় ঢুকে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে।

ঝর্ণার স্বামী জিতেন্দ্র লাল চাকমার অভিযোগ, বুধবার গভীর রাতে জুরাছড়ির বিজয়নগর ভালেদি আদাম এলাকার বাসায় ঢুকে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়।

রাঙামাটি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক শওকত আকবর বলেন, “তার মাথা, হাত ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে।”

তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

ঝর্ণার স্বামী জিতেন্দ্র লাল বলেন, “কিছু অপরিচিত যুবক হঠাৎ ঘরে ঢুকে ঝর্ণাকে কুপিয়ে জখম করে। আমরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে আমাদের মারধর করে। হামলার আগে তারা আমাদের বাসার বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়।”

ঝর্ণা ওপর হামলার ঘটনায় দলীয় নেতাকর্মীরা রাঙামাটি শহরে যুবলীগের ডাকা হরতালের মধ্যেই দফায় দফায় মিছিল ও সমাবেশ করেছেন।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে জেলার জুরাছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দ চাকমাকে হত্যা ও বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাসেল মার্মার ওপর হামলা হয়।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দীপঙ্কর তালুকদার বলেন, “সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি পার্বত্য এলাকা থেকে আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করার জন্যই এসব হামলার ঘটনা ঘটাচ্ছে।”

তবে জনসংহতি সমিতির মুখপাত্র সজীব চাকমা এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, “এসব হামলার সঙ্গে আমরা জড়িত না।”

এদিকে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে যুবলীগের হরতালের কারণে রাঙামাটি থেকে কোথাও কোনো প্রকার যান ছেড়ে যায়নি। অভ্যন্তরীণ নৌপথেও জেলা শহর থেকে উপজেলা শহরগুলোর উদ্দেশে কোনো লঞ্চ-বোট ছাড়েনি। শহরের ভেতেরে অটোরিকশা চলাচলও বন্ধ রয়েছে। শহরের অধিকাংশ দোকানপাটও বন্ধ।

হরতালের সমর্থনে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অবস্থান নিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Radio Today 89.6fm