কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে ‘ওমেন সুইমিং জোন’

আবিদ আজম, রেডিও টুডে।

কক্সবাজারে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে যাওয়া নারী পর্যটকদের ভ্রমণকে হয়রানিমুক্ত ও নির্বিঘ্ন করতে বৈচিত্র্যধর্মী এক নারীবান্ধব উদ্যোগ নিয়েছে, সেখানকার জেলা প্রশাসন। সৈকতের সী-গাল পয়েন্ট সাগরে নির্ধারণ করা হয়েছে শুধুমাত্র নারী পর্যটকদের জন্য আলাদা ‘ওমেন সুইমিং জোন’। দীর্ঘ ১২০ কিলোমিটার সৈকতের সব পয়েন্ট গোসলের জন্য উন্মুক্ত থাকলেও, এই জোন শুধুমাত্র নারী পর্যটকরাই ব্যবহার করতে পারবেন।

দিগন্ত বিস্তৃত আকাশ, নিচে অথৈ নীল জলরাশি, সাগর, নদী আর পাহাড়। ঢেউয়ের সঙ্গে যেখানে মিতালী পাতায় রোদের আলোয় জ¦লে ওঠা বালুকনা, ঝিনুক আর বিশুদ্ধ বাতাস। চোখ মেললেই ধরা পড়ে কল্পনার চেয়েও সুন্দর-স্বপ্নময় সব দৃশ্য। এইতো কক্সবাজারের পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত।

পর্যটকরা বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে ঘুরে দেখার পাশপাশি উন্মুখ হয়ে থাকেন সৈকতের বালিয়াড়ীতে সমুদ্রের আছড়ে পড়া ঢেউয়ে পা কিংবা শরীর ভেজাতে। সমুদ্র সৈকতের নির্ধারিত সব উন্মুক্ত পয়েন্টে গোসল করতে গিয়ে অনেক সময় নারী পর্যটকরা ইভটিজিং সহ নানাভাবে হয়রানির শিকার হন বলে অভিযোগ রয়েছে। এক্ষেত্রে পুরুষ সঙ্গী ছাড়া নারী পর্যটকরাই বেশি আক্রান্ত হন। এসব বিবেচনায় নারী পর্যটকদের ভ্রমণ নির্বিঘ্ন করতে স্থনীয় প্রশাসন আলাদা ‘ওমেন সুইমিং জোন’ নির্ধারন করায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ভ্রমণপিপাসুরা।

পর্যটকদের নিরাপত্তায় নারী ট্যুরিষ্ট পুলিশ ও লাইফ গার্ড সহ নারীবান্ধব নানা ব্যবস্থা রয়েছে বলেও জানালেন, জেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম জয়।

এদিকে, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আলী হোসেন জানিয়েছেন, সমুদ্র সৈকতকে সর্বস্তরের মানুষের জন্য নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন বিনোদন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে প্রশাসন নানা উদ্যোগ নিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Radio Today 89.6fm