টাঙ্গাইলে চলন্ত বাসে ধর্ষণের পর হত্যা : চারজনের ফাঁসির আদেশ

টাঙ্গাইলে চলন্ত বাসে কলেজ ছাত্রী জাকিয়া সুলতানা রুপাকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে চার আসামীর ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, ওই রুটের ছোঁয়া পরিবহনের চালক হাবিবুর রহমান ও তাঁর সহযোগী শামীম, আকরাম ও জাহাঙ্গীর। এছাড়া বাসের সুপারভাইজার সফর আলীকে সাত বছরের কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সকালে টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আবুল মনসুর মিয়া আসামীদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন।

মামলার বিবরনে জানা যায়, গত বছরের ২৫শে আগষ্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে পরিবহন শ্রমিকদের গণধর্ষনের শিকার হন ঢাকার আইডিয়াল ল’ কলেজের শিক্ষার্থী জাকিয়া সুলতানা রুপা। ধর্ষনেরর পর রুপাকে বাসের মধ্যেই হত্যা করে পথে ফেলে দেয়া হয়। পরে এ ঘটনার বাদি হয়ে পুলিশ মধুপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। এর পর পুলিশ ছোয়া পরিবহনের চালক হাবিবুর সহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে এবং ২৯শে আগষ্ট আদালতে স্বীকার স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেয় তারা। আজ বেলা সোয়া এগারোটায় মামলার রায়ে চারজনের মৃত্যদন্ড এবং একজনের সাত বছরের কারাদন্ডো হয়। রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন রুপার পরিবারের সদস্যরা। একই সাথে রায় নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি নাছিম উদ্দীন।

এদিকে আসামীপক্ষ তাদের মুক্তির দাবিতে আদালত প্রাঙ্গনে মানববন্ধন করেন। এই মামরা নিয়ে উচ্চআদালতে আপীল করার কথাও জানান আসামী পক্ষের আইনজীবি শামিম চৌধুরী। নিহত রুপার পরিবারের সদস্যরা অবিলম্বে রায় বাস্তবায়নের দাবী জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Radio Today 89.6fm